আবার আসিব ফিরে


photography by Shubho Salateen


আবার আসিব ফিরে

 আবার আসিব ফিরে ধানসিড়ির তীরে — এই বাংলায়
হয়তো মানুষ নয় — হয়তো বা শঙ্খচিল শালিখের বেশে;
হয়তো ভোরের কাক হয়ে এই কার্তিকের নবান্নের দেশে
কুয়াশার বুকে ভেসে একদিন আসিব এ কাঠাঁলছায়ায়;
হয়তো বা হাঁস হব — কিশোরীর — ঘুঙুর রহিবে লাল পায়,
সারা দিন কেটে যাবে কলমীর গন্ধ ভরা জলে ভেসে-ভেসে;
আবার আসিব আমি বাংলার নদী মাঠ ক্ষেত ভালোবেসে
জলাঙ্গীর ঢেউয়ে ভেজা বাংলার এ সবুজ করুণ ডাঙায়;

হয়তো দেখিবে চেয়ে সুদর্শন উড়িতেছে সন্ধ্যার বাতাসে;
হয়তো শুনিবে এক লক্ষ্মীপেচাঁ ডাকিতেছে শিমুলের ডালে;
হয়তো খইয়ের ধান ছড়াতেছে শিশু এক উঠানের ঘাসে;
রূপসা ঘোলা জলে হয়তো কিশোর এক শাদা ছেঁড়া পালে
ডিঙা রায় — রাঙা মেঘ সাঁতরায়ে অন্ধকারে আসিতেছে নীড়ে
দেখিবে ধবল বক: আমারেই পাবে তুমি ইহাদের ভিড়ে —

বনলতা সেন





 বনলতা সেন

হাজার বছর ধরে আমি পথ হাঁটিতেছি পৃথিবীর পথে,
সিংহল সমুদ্র থেকে নিশীথের অন্ধকারে মালয় সাগরে
অনেক ঘুরেছি আমি; বিম্বিসার অশোকের ধূসর জগতে
সেখানে ছিলাম আমি; আরো দূর অন্ধকারে বিদর্ভ নগরে;
আমি ক্লান্ত প্রাণ এক, চারিদিকে জীবনের সমুদ্র সফেন,
আমারে দুদণ্ড শান্তি দিয়েছিলো নাটোরের বনলতা সেন।

চুল তার কবেকার অন্ধকার বিদিশার নিশা,
মুখ তার শ্রাবস্তীর কারুকার্য; অতিদূর সমুদ্রের 'পর
হাল ভেঙে যে নাবিক হারায়েছে দিশা
সবুজ ঘাসের দেশ যখন সে চোখে দেখে দারুচিনি-দ্বীপের ভিতর,
তেমনি দেখেছি তারে অন্ধকারে; বলেছে সে, 'এতোদিন কোথায় ছিলেন?'
পাখির নীড়ের মত চোখ তুলে নাটোরের বনলতা সেন।

সমস্ত দিনের শেষে শিশিরের শব্দের মতন
সন্ধ্যা আসে; ডানার রৌদ্রের গন্ধ মুছে ফেলে চিল;
পৃথিবীর সব রঙ নিভে গেলে পাণ্ডুলিপি করে আয়োজন
তখন গল্পের তরে জোনাকির রঙে ঝিলমিল;
সব পাখি ঘরে আসে—সব নদী—ফুরায় এ-জীবনের সব লেনদেন;
থাকে শুধু অন্ধকার, মুখোমুখি বসিবার বনলতা সেন।

Banalata Sen

A thousand years I have walked these paths,
From the harbour at Malacca in the dark of night
To the straits of Ceylon at glimmer of dawn.
Much have I travelled -
The grey world of Ashoka-Bimbisara,
Further yet,
The dark city of Vidharbha;
Around me life foams its stormy breath.
Weary of soul,
I found a moment's respite in her presence -
She: Banalata Sen of Natore.
Her hair the ancient darkness of Vidisha,
Face a sculpture from Sravasthi.
A sailor in distant oceans, rudderless, lost,
When hoves into view
Island of grass through fronds of cinnamon,
A green relief
So she felt to me.
In the darkness she spoke -
"All these years, where had you been?"
Her eyebrows arched like the soaring wings of a bird -
She: Banalata Sen of Natore.
With the sound of dewdrops,
Comes evening.
The sunset fringe of gold on the eagle's wing
Melts into the night
And the glow of fireflies.
Birds return to nest -
The shop of life
Shuttered for the day.
Left behind in the darkness
Face to face -
Only she: Banalata Sen of Natore.

Jibananda Das. Translated from the original Bengali by Amitabha Mukerjee 

 

দুজন



 দুজন
‘আমাকে খোঁজো না তুমি বহুদিন – কতদিন আমিও তোমাকে
খুঁজি নাকো; – এক নক্ষত্রের নিচে তবু – একই আলো পৃথিবীর পারে
আমরা দুজনে আছি; পৃথিবীর পুরনো পথের রেখা হয়ে যায় ক্ষয়,
প্রেম ধীরে মুছে যায়, নক্ষত্রেরও একদিন মরে যেতে হয়,
হয় নাকি? – বলে সে তাকাল তার সঙ্গিনীর দিকে;
আজ এই মাঠ সূর্য সহমর্মী অঘ্রাণ কার্তিকে
প্রাণ ভরে গেছে।
দুজনে আজকে তারা চিরস্থায়ী পৃথিবী ও আকাশের পাশে
এবার প্রথম এল মনে হয়- যেন কিছু চেয়ে কিছু একান্ত বিশ্বাসে।
From poetry collection titled ‘Banalata Sen’
Originally published on December 1942 (1349 according to the Bengali calendar) Publisher: Jibanananda Das.


The Lovers
You didn’t search for me since ages—I too, have stopped
Searching for you since long; both of us nestled beneath the same star,
Kindling us both at the edge of this earth. We remain, self-same
While the ancient imprints of the earth’s route die away.
The splendor of love too, is erased eventually,
As the star dies its inevitable death.
Does it not? He asked, glancing at his mistress.
Satiated, he absorbs the open field, the inviting sun,
The early winter caresses that cocoon him, empathizing.
They stand, transfixed, alongside the perpetuity of the earth and sky.
A primal union, sealed with the sincerest of their longings.

Translated by  Lopamudra Banerjee